সুন্দরবনে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি, তদন্তে কমিটি

প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের দাসের ভারানী এলাকায় গতকাল সোমবার লাগা আগুন এখনো পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। ঘটনাস্থলে এখনো ধোঁয়া উড়ছে। কোথাও কোথাও সামান্য আগুনের ফুলকিও দেখা যাচ্ছে। তাই বনের অভ্যন্তরে আগুন পুরোপুরি নেভানোর জন্য আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে আবারও কাজ শুরু করেছে বনবিভাগ।

সকাল থেকে স্থানীয়দের সহায়তায় বনবিভাগের ১২টি ক্যাম্পের ৮০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী, ফায়ার সার্ভিসের সদস্য আগুন নেভানোর কাজ করছেন।

এর আগে গতকাল সোমবার দুপুরের দিকে অগ্নিকাণ্ডের পর ওই এলাকার চারপাশে ফায়ার লাইন কেটে পানি দেওয়ায় আগুন আশপাশে খুব বেশি ছড়াতে পারেনি। তবে যেখানে আগুন লেগেছে, সেখানে গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ বেশি। এ ছাড়া পুরো শুকনো মৌসুমে গাছের ডালপালা-লতাপাতা পড়ে মাটির ওপর মোটা আস্তরণ সৃষ্টি করেছে। তাই, আগুন ওপর থেকে দেখা না গেলেও মাটিতে পড়ে থাকা ডালপালা-লতাপাতায় রয়েছে। সেজন্য সোমবার রাতে ওই এলাকায় ব্যাপক বৃষ্টিপাত হলেও সকালে ধোঁয়া উড়তে দেখা যাচ্ছে।

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, ‘সোমবার দুপুরে আগুন লাগার পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে তা নিয়ন্ত্রণে এসেছিল। এরপর মঙ্গলবার সকালেও সেখান থেকে ধোঁয়া উড়তে থাকায় আবারও কাজ শুরু করা হয়েছে।’

জয়নাল আবেদীন আরও বলেন, ‘যেখানে আগুন লেগেছে, সেখানে বড় বড় কোনো গাছপালা নেই, ছোট গাছ ও লতাপাতা রয়েছে। ওই এলাকায় প্রায় দেড় থেকে দুই একর বনভূমিজুড়ে আগুনের বিস্তৃতি ঘটেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বননির্ভর জেলে-বাওয়ালীদের অসতর্কতায় বিড়ির আগুনে এমনটা ঘটে থাকতে পারে। এ ছাড়া অন্য কোনো কারণ আছে কি না, তা নির্ণয় করতে এরই মধ্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক মো. জয়নাল আবেদীনকে ওই তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে। কমিটির অপর দুজন হলেন, ধানসাগর স্টেশনের স্টেশন অফিসার ফরিদুল ইসলাম ও শরণখোলার স্টেশন অফিসার আবদুল মান্নান।

এর আগে গত ৮ ফেব্রুয়ারি পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর টহল ফাঁড়ি সংলগ্ন ২৭ নম্বর কম্পার্টমেন্টের বনে আগুন লেগে পুড়ে যায় প্রায় পাঁচ শতাংশ বনের গাছপালা ও গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ।

বনবিভাগের তথ্য অনুযায়ী, সুন্দরবনে ১৫ বছরে ২৮ বার আগুন লেগে পুড়ে যায় প্রায় ৮০ একর বনভূমি। ২০১৭ সালের ২৬ মে পূর্ব সুন্দরবনে চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশনের নাংলী ফরেস্ট ক্যাম্পের আওতাধীন আব্দুল্লাহর ছিলায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ওই আগুনে প্রায় পাঁচ একর বনভূমির ছোট গাছপালা, গুল্ম পুড়ে ছাই হয়ে যায়।